শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে বেনাপোলে মাছসহ ভরতীয় ট্রাক আটক | আমাদেরবাংলাদেশ.কম
বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০১:৪৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষঃ
বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে অবৈধ ভাবে ভারতে প্রবেশের সময় মহেশপুর  বিজিবির হাতে ৩১ জন আটক করোনা দ্রুত বেড়ে যাওয়ায়: ঢাকার সঙ্গে সাত জেলার যোগাযোগ বন্ধ ঘোষণা চার কুল,আয়াতুল কুরসিসহ বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ হারিয়ে যাচ্ছে রুপলাল হাউজ প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে নবনিযুক্ত বিমান বাহিনী প্রধানকে র‌্যাঙ্ক ব্যাজ পরলেন শেখ আব্দুল হান্নান বিমানবাহিনী প্রধানের দায়িত্ব নিলেন রাজনৈতিক দলের নেতাদের মুখে সর্বদা মিথ্যাচার মানায় না: কাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছেন খালেদা জিয়া ১০ লাখ টিকা দিচ্ছে বাংলাদেশকে কোভ্যাক্স: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে বেনাপোলে মাছসহ ভরতীয় ট্রাক আটক

  • সর্বশেষ আপডেট শনিবার, ১ মে, ২০২১

শার্শা সংবাদদাতা।। শুল্কফাঁকির অভিযোগে বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে আমদানিকৃত সামুদ্রিক মাছ ভর্তী একটি ভারতীয় ট্রাক আটক করেছে কাস্টমস সদস্যরা। তবে ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি কাস্টমস কতৃপক্ষ।

শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে বেনাপোল বন্দরের টিটিবি মাঠ থেকে ট্রাকটি আটক করা হয়। অবৈধ ভাবে আমদানিকৃত সামুদ্রিক মাছের আমদানি কারক যশোরের ফাইম এন্টারপ্রাইজ এবং পণ্য খালাসকারী সিএন্ডএফ এজেন্ট বেনাপোলের সানমুন এন্টারপ্রাইজ।

কাস্টমস সুত্র জানায়, গত বৃহস্পতিবার রাতে কোন এক সময় ভারত থেকে ডব্লিউ-বি ২৫ই-৪৮১৪ নাম্বারের একটি ট্রাক ২৫০ কাটুনে ৫ হাজার কেজি সামুদ্রিক মাছ নিয়ে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করে। পরে ট্রাকটি নিয়ম অনুযায়ী কাগজ পত্রের আনুষ্ঠানিকতা ও সরকারের রাজস্ব পরিশোধ না করে বন্দরের টিটিবি মাঠে নিয়ে খালাস করছিল। এসময় খবর পেয়ে কাস্টমস সদস্যরা অভিযান চালালে চালকসহ অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। পরে ভারতীয় ট্রাকটি জব্দ করে কাস্টমস সদস্যরা।।

বেনাপোল কাস্টমস হাউজের অতিরিক্ত কমিশনার ড. নেয়ামুল ইসলাম মাছবাহী ট্রাক আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার রাতে জব্দকৃত মাছ নিলামে তোলা হয়েছে। আর যাতে কেউ এমন অপরাধ করতে সাহস না পায় তার জন্য অভিযুক্ত ব্যবসায়ীদের চিহ্নীত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, বর্তমান সময়ে বন্দর ও কাস্টমসের বিভিন্ন নিরাপত্তা সংস্থার নজর এড়িয়ে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আমদানি পণ্য পাচার অনেকটা রহস্য জনক ঘটনা। মাছ পাচারকারীদের তথ্য থাকলেও মুখ খুলছেন না কর্মকর্তারা। সুবিধা নিয়ে অপরাধীকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন বলেও অনেকে অভিযোগ তোলেন। বার বার শুল্কফাঁকির ঘটনায় গত ৪ বছর ধরে বেনাপোল কাস্টমস হাউজ রাজস্ব বোর্ডের দেওয়া লক্ষ্য মাত্রা অর্জন করতে ব্যর্থ হচ্ছেন বলে জানা গেছে।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved ©আমাদের বাংলাদেশ ডট কম
Developed By amaderbangladesh.com